Current Bangladesh Time
বৃহস্পতিবার নভেম্বর ২১, ২০১৯ ১১:২০ অপরাহ্ণ
Latest News
প্রচ্ছদ  » জাতীয় » ‘শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা’ উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর বাণী 
শুক্রবার মে ১৭, ২০১৯ , ১১:০০ অপরাহ্ণ
Print this E-mail this

‘শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা’ উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর বাণী


অগ্রযাত্রা ডেস্কঃ

‘শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা’ উপলক্ষে পৃথক বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মহামতি গৌতমবুদ্ধের মহান আদর্শকে ধারণ করে দেশের উন্নয়নে বৌদ্ধ সম্প্রদায়কে তাদের কর্ম প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখার আহবান জানিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের বাণীঃ

রাষ্ট্রপতি ‘শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা’ উপলক্ষে বাংলাদেশসহ বিশ্বের বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের মৈত্রীময় শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।

আবদুল হামিদ বলেন, শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের পবিত্র ধর্মীয় উৎসব। মহামতি গৌতম বুদ্ধের জন্ম, বুদ্ধত্ব লাভ ও মহাপরিনির্বাণ শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমার সাথে গভীরভাবে সম্পৃক্ত। মহামতি বুদ্ধ ছিলেন জীবের মঙ্গল কামনায় সত্যসন্ধ।

রাষ্ট্রপতি বলেন, পৃথিবীকে সুখী ও শান্তিপূর্ণ করে গড়ে তোলার জন্য গৌতম বুদ্ধ নিরন্তর প্রয়াস চালান। বুদ্ধের চেতনায় ছিল দুঃখ জয়ের মাধ্যমে জীবের মুক্তি কামনা। ‘চতুরার্য সত্য’ তত্ত্বে তিনি জীবনে দুঃখ, দুঃখের উৎপত্তি, দুঃখ ভোগের কারণ এবং তা থেকে মুক্তির পথ দেখান। তাঁর মতে ‘নির্বাণ’ লাভের মাধ্যমে মানুষ জীবনের পরমার্থ অর্জন এবং সকল প্রকার দুঃখ থেকে পরিত্রাণ লাভ করতে পারে।

আবদুর হামিদ উল্লেখ করেন, এ জন্য মহামতি গৌতম বুদ্ধ অষ্টমার্গ তথা প্রজ্ঞা, শীল ও সমাধি চর্চার উপদেশ দেন। তিনি স্থান-কাল-পাত্রের ঊর্ধ্বে ওঠে পৃথিবীর সকল জীবের কল্যাণ ও সুখ কামনা করেন। ‘সব্বে সত্তা সুখীতা হোন্তু’-পৃথিবীর সকল প্রাণী সুখী হোক, এ ছিল বুদ্ধের শাশ্বত দর্শন।

মহামতি বুদ্ধ একটি সৌহার্দ্য ও শান্তিপূর্ণ বিশ্ব প্রতিষ্ঠায় আজীবন সাম্য ও মৈত্রীর বাণী প্রচার করে গেছেন এ কথা উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘অহিংস পরম ধর্ম’ বুদ্ধের এই অমিয় বাণী আজও সমাজে শান্তির জন্য সমভাবে প্রযোজ্য। আজকের এই অশান্ত ও অসহিষ্ণু বিশ্বে মূল্যবোধের অবক্ষয় রোধ, ধর্ম-বর্ণ-জাতিতে হানাহানি রোধসহ সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠায় মহামতি বুদ্ধের দর্শন ও জীবনাদর্শ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে বলে তাঁর বিশ্বাস।

আবদুর হামিদ বলেন, প্রাচীনকাল থেকে বাংলার জনপদের সাথে বৌদ্ধ সভ্যতা ও কৃষ্টি গভীরভাবে মিশে আছে। পাহাড়পুর ও ময়নামতি শালবন বিহার তার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। আবহমানকাল থেকে এ দেশের সকল ধর্মের মানুষ তাদের নিজ নিজ ধর্ম ও আচার অনুষ্ঠানাদি অত্যন্ত জাঁকজমকভাবে পালন করে আসছে। এটা ‘আমাদের সম্প্রীতির এক উজ্জ্বল ঐতিহ্য।’

রাষ্ট্রপতি কামনা করেন,শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা সবার জন্য বয়ে আনুক অনাবিল শান্তি ও সমৃদ্ধি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাণীঃ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আমরা সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অসাম্প্রদায়িক, ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত ও সুখী-সমৃদ্ধ স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলতে সক্ষম হব।

শনিবার (১৮ মে) শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে শুক্রবার দেওয়া এক বাণীতে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।ন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। আবহমান কাল থেকে এ দেশে প্রত্যেক ধর্মের মানুষ মুক্ত পরিবেশে নিজ নিজ ধর্ম নির্বিঘ্নে প্রতিপালন করে আসছেন। আমরা বিশ্বাস করি, ‘ধর্ম যার যার উৎসব সবার’।

তিনি বলেন, হাজার বছরের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য এবং মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে আমরা বৈষম্যহীন সমাজ বিনির্মাণে নিরসলভাবে কাজ করে যাচ্ছি। বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীগণও যুগ যুগ ধরে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন কর্মকা-ে সমানভাবে অংশগ্রহণ করে আসছে।

শেখ হাসিনা বলেন, ভয়, লোভ, লালসাকে অতিক্রম করে গৌতম বুদ্ধ সারা জীবন মানুষের কল্যাণে এবং শান্তি প্রতিষ্ঠায় অহিংসা, মৈত্রী ও করুণার বাণী প্রচার করেছেন। শান্তি ও সম্প্রীতির মাধ্যমে আদর্শ সমাজ গঠনই ছিল তাঁর একমাত্র লক্ষ্য। হিংসায় উন্মত্ত পাশবিক শক্তিকে দমন করার জন্য আজকের পৃথিবীতে বুদ্ধের শিক্ষা একান্ত প্রয়োজন।

প্রধানমন্ত্রী মহামতি গৌতম বুদ্ধের জন্ম, বোধিলাভ এবং মহাপ্রয়াণের স্মৃতি বিজড়িত শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে দেশের বৌদ্ধ সম্প্রদায়সহ দেশবাসীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানান এবং বুদ্ধ পূর্ণিমা বিশ্বের সকল মানুষের জীবনে সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি বয়ে আনুক এ কামনা করেন।

Archives
Image
মেয়র হানিফ উড়ালসেতুতে বেপরোয়া গতিতে যানবাহন চলাচল
Image
লোহাগড়ায় ত্রিবার্ষিক সম্মেলন নিয়ে আওয়ামী নেতাকর্মীদের ক্ষোভ
Image
বাঞ্ছারামপুর সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত
Image
রাজাপুরে কমিউনিটি পুলিশিং ডে উদযাপিত
Image
বঙ্গবন্ধুর নামে সড়কের নামকরণ করবে ফিলিস্তিন