Current Bangladesh Time
মঙ্গলবার সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৯ ৯:২১ অপরাহ্ণ
Latest News
প্রচ্ছদ  » স্লাইডার নিউজ » মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ প্রত্যাহারে হাইকোর্টের নির্দেশনা 
বুধবার জুন ১৯, ২০১৯ , ২:০৯ অপরাহ্ণ
Print this E-mail this

মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ প্রত্যাহারে হাইকোর্টের নির্দেশনা


রাজধানীর ফার্মেসী গুলোতে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ প্রত‍্যাহার ও ধ্বংসের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। সেই সাথে আগামী ৩০ দিনের মধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ এইসব ওষুধ সংরক্ষণ ও বিপণনের সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নিয়ে প্রতিবেদনও চাওয়া হয়েছে। ১৭ই জুন সোমবার জাসটিস ওয়াচ ফাউন্ডেশনের পক্ষে নির্বাহী পরিচালকের জনস্বার্থে করা এক রিটের শুনানিতে ১৮ই জুন মঙ্গলবার বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসান এবং বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ রুল সহ এই আদেশ দেন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এ বি এম আলতাফ হোসেন, রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ বি এম আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার ও সহকারী অ‍্যাটরনি জেনারেল এম কে সাইফুল আলম। ফার্মেসীতে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ সংরক্ষণ ও বিক্রি বন্ধে সরকারের
নিস্ক্রিয়তা কেন অবৈধ হবেনা, তা রুলে জানতে চাওয়া হয়েছে। এবং স্বাস্থ্য সচিব , স্বরাষ্ট্র সচিব, আইন সচিব, শিল্প সচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক,উপ পরিচালক সহ পুলিশের মহাপরিদর্শক এবং বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতির সভাপতি ও মহাসচিব কে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে!
ওদিকে বিগত ছয় মাসের জরিপ অনুযায়ী সারাদেশের ফার্মেসীতে মিলছে মাত্র ৭শতাংশ মানসম্মত ওষুধ। ১০ ই জুন রাজধানীর খামার বাড়ির আ কা মু গিয়াসউদ্দিন মিল্কি মিলানায়তনে বিশ্ব নিরাপদ খাদ্য দিবস উপলক্ষে আয়োজিত ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক জনাব মনজুর মোহাম্মদ বলেন ৯৩ শতাংশ ফার্মেসীতে পাওয়া যায় মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ যা বিগত ছয় মাসে কখনো ক্রেতা সেজে আবার কখনো ঝটিকা অভিযান চালিয়ে উঠে এসেছে এসব তথ্য। এরই ধারাবাহিকতায় ১১ ই জুন প্রথম আলো তে প্রকাশিত এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন সহ আরো অনান্য কয়েকটি প্রতিবেদনের ভিত্তিতে জাসটিস ওয়াচ ফাউন্ডেশনের পক্ষে এর নির্বাহী পরিচালক মাহফুজুর রহমান গত সোমবার জনস্বার্থে এক রিট আবেদন করলে মঙ্গলবার সেই রিট শুনানির ফল স্বরূপ মাননীয় হাইকোর্ট মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ প্রত‍্যাহার ও ধ্বংসের নির্দেশনা প্রদান করেন ।
প্রাণ রক্ষাকারী ওষুধ শিল্পের এহেন ভয়াবহ চিত্র উঠে এলেও ওষুধ শিল্প সমিতির সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এটাকে তেমন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় বলে মনে করেন না।তার মতে ফার্মেসী গুলোতে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ থাকতেই পারে কিন্তু তা বিক্রি না হওয়াই হচ্ছে বড় কথা। কারন এগুলো তুলে নিয়ে নতুন সরবরাহ করা হয়। কিন্তু অন‍্যদিকে দিনের পর দিন সারা দেশের বিভিন্ন স্থানে ভেজাল, নকল ওষুধ তৈরির কারখানা এমনকি নিম্ন মানের কাঁচামালের যোগানে ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি বিভিন্ন ওষুধে সয়লাব ঢাকার সবচেয়ে বড় ওষুধের বাজার সহ সারাদেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ফার্মেসী গুলো। এরই মধ্যে পুরান ঢাকার দ্বীননাথ সেন রোডে নকল ও ভেজাল ওষুধের আবিষ্কৃত কারখানায় কোটি টাকা মূল্যের মেশিন প্রশ্নের জন্ম দেয় ,যে ব‍্যবসা না থাকলে এতো বিনিয়োগ কিভাবে আসে ? এর পর পর পুরান ঢাকার জুরাইনে অনির্বাণ নামে এক ওষুধ কারখানা বন্ধ করে দেয়া অস্বাস্থ্যকর স‍্যাতস‍্যাতে পরিবেশে ময়লার ভাগাড়ের মতো স্তুপ করা নিম্নমানের কাঁচামালে এখানে তৈরি করা হতো জীবন রক্ষাকারী ওষুধ।

Archives
Image
রাজাপুরে নারী ও শিশুর ওপর পৈচাশিক হামলা; আহত ৩
Image
মাদককারবারীদের হামলায় গুরুতর আহত যুবলীগ নেতা রিগান
Image
শরিয়তপুর সদর হাসপাতাল থেকে নবজাতক চুরির অভিযোগ
Image
লক্ষ্মীপুরে ভেজাল উপকরণ ব্যবহার করায় দুই বেকারীকে জরিমানা
Image
কুয়াকাটা বন্ধুমহল সোসাইটি’র উদ্যোগে বাঁশের সাকো নির্মাণ