Current Bangladesh Time
সোমবার আগস্ট ২৬, ২০১৯ ১১:৫৪ পূর্বাহ্ণ
Latest News
প্রচ্ছদ  » স্লাইডার নিউজ » ধর্ষণ ও হত্যা ; এগিয়ে আসতে হবে আমাদেরই 
সোমবার জুলাই ৮, ২০১৯ , ৬:৪৯ অপরাহ্ণ
Print this E-mail this

ধর্ষণ ও হত্যা ; এগিয়ে আসতে হবে আমাদেরই


 

নাহিদ নীলা-

বর্তমানে বাংলাদেশের সবচেয়ে আলোচিত ও ভয়ংকর বিষয় ধর্ষন। বিবেকবান প্রতিটি মানুষ আজ শঙ্কিত। সবচেয়ে ভয়ংকর বিষয় হল মসজিদের ইমাম , মাদ্রাসা এতিমখানার শিক্ষকদের দ্বারা কোমলমতি শিশুদের ধর্ষন ,বলাৎকার এবং হত্যা। মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ বলেছেন, “ মাদ্রাসায় ধর্ষন বলাৎকার অনেক আগে থেকেই চলে আসছে, এখন মিডিয়ার বদৌলতে মানুষ জানতে পারছে”।

ফেনীর নুসরাতের পর রাজধানীর মুগদার হাসি। একজন মাদ্রাসাছাত্রী, অপরজন গৃহবধূ। দুজনই কেরোসিনের আগুনের নির্মম বলি। মাত্র ১২ দিনের ব্যবধানে ঘটে আলোচিত এই দুই ঘটনা।

বাংলাদেশ শিশু অধিকার ফোরাম তাদের এক জরিপে ধর্ষণের যে চিত্র তুলে ধরেছে তা ভয়ানক। তাদের তথ্য অনুযায়ী চলতি বছরের তিন মাসে ধর্ষণের শিকার হয়েছে ১৬৪ জন শিশু। এ সংখ্যা জানুয়ারিতে ছিল ৫২, ফেব্রুয়ারিতে বেড়ে হয় ৬০ এবং মার্চে ফের ৫২ জনে দাঁড়ায় । গত তিন মাসে গণ-ধর্ষণের শিকার হয়েছে ১৯ জন। এর মধ্যে ৭ জন প্রতিবন্ধী শিশুও ধর্ষণের শিকার হয়। ধর্ষণ-চেষ্টা হয়েছে ৮ জনের ওপর। ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে ১২ জনকে। ২০১৭ সালের চেয়ে ২০১৮ সালে শিশু ধর্ষণ বেড়েছে অন্তত ৩৪ শতাংশ।

পরিসংখ্যান অনুসারে চলতি বছরের শুরুর তিন মাসে ৩৯৬ জন নারী-শিশু হত্যা, ধর্ষন ও নির্যাতণের শিকার হয়েছে। পুলিশ সদর দফতরের হিসেব অনুসারে নারী ও শিশু নির্যাতণের মামলা হয়েছে ১ হাজার ১৩৯ টি এবং হত্যা মামলা হয়েছে ৩৫১ টি। মানুষের জন্য ফাউন্ডেশণ এঢ় তথ্য মতে চলটি মাসের (জুন ১৯) প্রথম ১৫ দিনে সারা দেশে ধর্ষন চেষ্টা ও যৌন হয়রানির শিকার হয়েছে ৪৭ জন শিশু যার মধ্যে ৩৯ জন শিশু ধর্ষনের শিকার। পরিসংখ্যানের এসব চিত্র উদ্দ্যেগ জনকতো বটেই সেই সাথে সীমাহীন ভয়ের কারণও।

গত কয়েকদিনের পত্রিকার সংবাদ এই রকম “বর্ষাকে ধর্ষণের আলামত” “ধর্ষণের পর খুন শিশু সায়মাকে” “হাসপাতালে ধর্ষণের শিকার ৮ বছরের শিশু” “ধর্ষণের অভিযোগে উপসচিব বরখাস্ত” “আড়াইহাজারে কিশোরী, পটুয়াখালীতে শিশু ধর্ষিত” সার্বিক অবস্থার প্রেক্ষিতে এ গুলো শুধু কিছু খন্ড চিত্র মাত্র। বাস্তব চিত্র আরও অনেক ভয়াবহ ।

কেন বাংলাদেশে এত ধর্ষনের ঘটনা ঘটছে তার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে সমাজ বিজ্ঞানীদের ঘুম হারাম হয়ে গেছে যেমন তেমনি আরেক দল রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের জন্য সরকারের ব্যর্থতাকে এক তরফা দায়ী করে পক্ষান্তরে ধর্ষকদের উৎসাহিত করছে। গ্রামের সহজ সরল নারী- শিশু থেকে সমাজের উচ্চবিত্ত নারী-শিশু কেহ রেহাই পাচ্ছেনা এই ধর্ষকদের হাত থেকে। স্কুল- কলেজ, মসজিদ- মাদ্রাসা , শিক্ষক, ইমাম, মাওলানা , অধ্যক্ষ এই সব নাম বা পদবী এখন ধর্ষক এর প্রতি শব্দ হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে ।

অর্থনৈতিক বৈষম্য , শোষণ- বঞ্চনা , ক্ষুদা – অপুষ্টি , স্বাস্থ্যহীনতা, মাথা পিছু আয়, বার্ষিক জিডিপি সহ উন্নয়নের সকল সূচকে দেশ যখন এগিয়ে তখন কেন এই ধর্ষনের মহামারী রোধ করা যাচ্ছেনা ?

এখন সময় হয়েছে সম্মিলিত ভাবে সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি করে জনগণকে এগিয়ে আসার । একটি বিশাল জনগোষ্ঠীর চরম নৈতিক অবক্ষয় হয়েছে। ৪০ দিনের শিশু থেকে ৯০ বছরের বৃদ্ধা, কিশোরী কিংবা বালক কেউ বাদ যাচ্ছেনা । আমি বা আপনি কিংবা আমরা যদি নৈতিকতা হারিয়ে পশুতে পরিণত হই তাহলে রাষ্ট্র বা প্রশাসন কিভাবে এগিয়ে যাবে পুলিশ ই বা কি করবে।

রাষ্ট্র একটি যন্ত্র , আমি আপনি আমরা সেই যন্ত্রের একেটি অংশ, তাই রাষ্ট্রের কোণ ব্যার্থতা বা বিশাল এই জনগোষ্ঠীর নৈতিক অবক্ষয়ের দায়ভারও সমান ভাবে আমাদের। তাই আমাদেরকেই এগিয়ে আসতে হবে।

লেখকঃ সহ- সম্পাদিকা,সাপ্তাহিক অগ্রযাত্রা।

Archives
Image
মঠবাড়িয়ায় আওয়ামীলীগের ১৫ আগষ্ট ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত
Image
ঝালকাঠিতে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়; ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান
Image
র‌্যাব-১০ এর বিশেষ অভিযানে ভুয়া মেজর আটক
Image
প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক শরীফ আহমেদ এর গল্প- ভালোবাসার নীলিমা
Image
প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক শরীফ আহমেদের গল্পঃ “পাহাড়ধ্বস”